আমেরিকা আবিষ্কারক আল বেরুনি!

  কোন মন্তব্য নেই
আমেরিকার আবিষ্কারক আবু রায়হান আল বেরুনি নাকি কলম্বাস এই নিয়ে অনেকের মনে অনেক সংশয় রয়েছে।  অনেক অমুসলিম ইতিহাসবিদগন মুসলিমদেরই আমেরিকা আবিস্কারের কৃতিত্ব দেন।  আমেরিকার বিখ্যাত ইতিহাসবিদ ফ্রেড্রিক স্টার প্রথম আটলান্টিক মহাসাগর পারি দিয়ে আমেরিকার মাটিতে প্রথম বিদেশির পা রাখার স্বীকৃতি দেন মুসলিম দার্শনিক আবু রায়হান আল বেরুনি'কে।  
আল বেরুনি


আবু রায়হান আল বেরুনি এর জন্ম ৯৭৩ খ্রিস্টাব্দে।  তিনি ছিলেন তৎকালীন সময়ের পদার্থ, গণিত এবং জ্যোতির্বিজ্ঞান শাস্ত্রের অনেক বড় পাণ্ডিত্যের অধিকারী।  ইতিহাসবিদরা বলেন আল বিরুনি ছিলেন সেই সময়কার অনেক বড় ভাষাতত্ত্ববিদ এবং মুসলিম দার্শনিক। 

আবু আব্দুল্লাহ মুহাম্মদের পর স্পেন এবং ওই অঞ্চলে ইসলামের ৮০০ বছরের গৌরবমণ্ডিত শাসন ব্যবস্থার পরিসমাপ্তি ঘটে।  আর এই সময় ইউরোপীয় অঞ্চলে অমুসলিম শাসন ব্যবস্থার জাগরণ শুরু হয়।  ভারতবর্ষ ওই সময় আবিষ্কৃত হয়ে গিয়েছিল, আমেরিকা তখনও আবিষ্কৃত হয়নি।  সেই জনপদের একজন নামকরা বনিক ক্রিস্টোফার কলম্বাসের সেইসময়কার রানি ইসাবেলার সঙ্গে খুব ভালো খাতির ছিল।  তিনি রানি রানি ইসাবেলাকে বোঝাতে সক্ষম হয়েছিলেন যে তিনি নতুন কোন জনপদের সন্ধান করে সেখান করে বহু সম্পদ আহরণ করে তাদের দেশে নিয়ে আসবেন।

রানী ইসাবেলা এর অর্থায়নে ক্রিস্টোফার কলম্বাস আমেরিকা যাত্রা শুরু করেন। তবে সেইসময় ইউরোপিয়ানরা এতটা দক্ষ ছিলোনা যে, তারা কুয়াশা ভরা অ্যাটল্যান্টিক মহাসগর পারি দিতে পারতো।   ক্রিস্টোফার কলম্বাস ছিলেন একজন খ্রিষ্টীয় ধর্মযোদ্ধা।  তার আরেকটি উদ্দেশ্য ছিল অ্যাটল্যান্টিকের অপর প্রান্তে যদি কোন জনপদ থাকে, তবে তিনি সেখানে খ্রিষ্টীয় ধর্মের প্রসার ঘটিয়ে আসবেন।  ক্রিস্টোফার কলম্বাস তীব্রভাবে মুসলিমবিরোধী ছিলেন।

তবে অ্যাটল্যান্টিক পারি দেয়ার জন্য যাত্রা করবেন, তবে তার জন্য  পর্যাপ্ত ভৌগলিক জ্ঞান দরকার।  এই জ্ঞানের জন্যেও ক্রিস্টোফার কলম্বাসকে নিরভর করতে হয়েছিল মুসলিম  ভৌগলিকদের বইয়ের প্রতি।  সেই সময় তিনি পথের দিশা খুজতে লাগলেন মুসলিমদের দেখানো নানা পথের সূত্র থেকে।  অতঃপর ঘন কুয়াশার চাঁদর ভেদ করে আমেরিকার আগে কিউবা দ্বীপপুঞ্জে গিয়ে ভিড়েছিলেন মুসলিমদের দেখিয়ে দিয়ে যাওয়া কম্পাস চার্ট এবং ভৌগলিক সূত্র অনুসরণ করেই।  ওইসময় তারা কিউবার এক পাহাড়ের চুড়ায় একটি মসজিদ আবিস্কার করেছিলেন, যদিও তাদের ইতিহাস ঢাকার সুবাদে, এই বিষয়টি ফলাওভাবে প্রচার পায়নি।


    

কোন মন্তব্য নেই :

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন