বাজেটের নাগালে প্রিমো এইচ৮ সিরিজের স্মার্টফোনগুলো হতে পারে সেরা পছন্দ!

  কোন মন্তব্য নেই

বাজেট লাইনআপের ভেতর ওয়ালটনের জনপ্রিয় একটি স্মার্টফোন সিরিজ, প্রিমো এইচ৮ সিরিজ। প্রিমো এইচ৮ সিরিজে আপনি বেশ কয়েকটি ভেরিয়েন্টে পাবেন দারুন কতোগুলি ফোন, যা সত্যি আপনার স্মার্টফোনটি কেনার মূল্য রাখবে। ইতিমধ্যে বিগত কয়েকমাস থেকে এই পর্যন্ত সময়ে এইচ৮ সিরিজের স্মার্টফোনগুলো বাজারে বেশ সারা ফেলেছে। এইচ৮ সিরিজ বাজেট এর ভেতর সাধারন ব্যবহারকারীদের পাবজি এর মত গেমস খেলার সুযোগ করে দেয়। এইচ৮ সিরিজে আপনি পাবেন ২টি মডেল; আবার প্রতিটি মডেল এর থাকছে দুটি করে ভেরিয়েন্ট।

প্রিমো এইচ৮ প্রো

দাম, ডিজাইন এবং স্পেসিফিকেশন এর সাথে সামঞ্জস্য করলে আমরা সহজেই বুঝতে পারব ওয়ালটন তাঁদের এই স্মার্টফোনে মিনিমান বাজেট এর ব্যবহারকারীদের কথা মাথায় রেখে ওয়ালটন এই স্মার্টফোন তৈরি করেছে। এতে ব্যবহার করা হয়েছে করটেক্স এ৫৫ চিপসেট, আর এটি ১.৬ গিগাহার্জ ক্ষমতা সম্পন্ন ৮ কোর বিশিষ্ট অক্টাকোর সিপিইউ। প্রসেসর এর দিক দিয়ে এই বাজারের অন্য সকল ফোনের চাইতে এই প্রিমো এইচ৮ প্রো অনেক বেশি এগিয়ে। গ্রাফিক্স ইউনিটে দেখা যাচ্ছে এখানে করটেক্স এ৫৫ এর সাথে পাওয়ার ভিআর জিই৮৩২২ জিপিইউ ব্যবহার করা হয়েছে।

একনজরে প্রিমো এইচ৮ প্রো

  • ডুয়াল সিম ৪জি সাপোর্ট
  • ১৩ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা
  • ৮ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা
  • ১.৬ গিগাহার্জ অক্টাকোর প্রসেসর
  • ৫.৭১ ইঞ্চি এইচডি আইপিএস ডিসপ্লে
  • এন্ড্রয়েড ৯ পাই সংস্করন
  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর
  • ৩৫২০ এমএএইচ ব্যাটারি
হেভি এবং মিডিয়াম দুইরকম ব্যবহারকারীদের কথা মাথায় রেখেই প্রিমো এইচ৮ প্রো ডিজাইন করা হয়েছে। যারা সাধারন কাজে স্মার্টফোনটি ব্যবহার করতে চান তাঁদের জন্য আছে এই স্মার্টফোনের ২ জিবি র‍্যাম ভার্সন। প্রিমো এইচ৮ প্রো এর ২ জিবি র‍্যাম-১৬ জিবি রম ভার্সনের দাম ৭৭৯৯ টাকা।

আবার যারা গেমিং এর জন্য স্মার্টফোন খুঁজছেন। হালের জনপ্রিয় পাবজি,কল অফ ডিউটি এর জন্য একটি বাজেট গেমিং স্মার্টফোন খুঁজছেন তাঁদের জন্য আছে প্রিমো এইচ৮ প্রো এর ৩ জিবি র‍্যাম এবং ৩২ জিবি রম ভার্সন। আর এই ৩ জিবি র‍্যাম এবং ৩২ জিবি রম ভার্সনের দাম ৮৪৯৯ টাকা।

ডিভাইসটির রিয়ার প্যানেলে রয়েছে একটি বিএসআই সেন্সর যুক্ত ক্যামেরা মডিউল। যা একটি ১৩ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা সেন্সর, এর এপারচার এফ ২.০। এখানে ব্যবহার করা হয়েছে ৫পি লেন্স। আর এই দামে এই ক্যামেরা দিয়ে অন্যসব ফোনের চেয়ে তুলনামূলক ভালো মানের ছবি তোলা সম্ভব। রিয়ার ক্যামেরাটির সাথে পাওয়া যাবে বেশ কয়েকটি সুটিং মোড, যা আপনাকে ভিন্ন ভিন্ন পরিস্থিতিতে ভিন্ন ভিন্ন ভাবে ছবি তুলতে সহযোগিতা করবে। সেলফি তোলার জন্য বা ভিডিও কলিং করার জন্য এই ফোনের ফ্রন্ট প্যানেলে আপনি পাবেন ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা।

প্রিমো এইচ৮ টার্বো

এইচ৮ সিরিজের আরেকটি জনপ্রিয় মডেল হচ্ছে প্রিমো এইচ৮ টার্বো। রোজ গোল্ড, টুলাইট ব্লু এবং মিডনাইট ব্লু এই তিনটি কালারে স্মার্টফোনটি এখনো ব্যবহারকারীদের ভেতর অনেক প্রিয় একটি স্মার্টফোন। যাদের নচ তেমন পছন্দ না বা খুব বেশি দরকার নেইতাঁদের জন্য প্রিমো এইচ৮ টার্বো হতে এই বাজেটে পারে কাটায় কাটায় সেরা। ডিভাইসটিতে পাওয়া যাবে ৫.৪৫ ইঞ্চি ফুল ভিউ ডিসপ্লে। আর ১৮ঃ৯ রেসিও এইচডি প্লাস ডিসপ্লে হওয়ার কারনে মাল্টিমিডিয়া এবং গেমিং হবে একদম স্মুথ! এর ফ্রন্ট এবং রিয়ার উভয় পাশেই পাবেন ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা সেন্সর।

প্রিমো এইচ৮ টার্বোতে পাওয়া যাবে ১.৫ গিগাহার্জ কোয়াড কোর প্রসেসর। প্রিমো এইচ৮ প্রো এর মত এই ডিভাইসটির ক্ষেত্রেও হেভি এবং মিডিয়াম দুইরকম ব্যবহারকারীদের কথা মাথায় রাখা হয়েছে। প্রিমো এইচ৮ টার্বো এর ২ জিবি র‍্যাম-১৬ জিবি রম ভার্সনের দাম ৬৮৯৯ টাকা। আবার একই ভাবে যারা একটু হেভি ডিউটি কাজ করতে চাচ্ছেন তাঁদের জন্য আছে এই ফোনের ৩ জিবি র‍্যাম এবং ৩২ জিবি রম ভেরিয়েন্ট। প্রিমো এইচ৮ টার্বো ৩-৩২ ভেরিয়েন্ট এর দাম পরবে ৭৫৯৯ টাকা। সুতরাং যাদের কাছে এইচ৮ প্রো কেনার বাজেট হচ্ছে না, তাঁদের জন্য প্রিমো এইচ টার্বো হতে পারে বিকল্প অপশন।

একনজরে প্রিমো এইচ৮ টার্বো

  • ৪জি নেটওয়ার্ক সাপোর্ট
  • এন্ড্রয়েড ৮.১ অরিও
  • ১.২৮গিগাহার্জ ১.৫গিগাহার্জ কোয়াড কোর প্রসেসর
  • ২জিবি এবং৩ জিবি র‍্যাম; ১৬ জিবি রম
  • ৫.৪৫ ইঞ্চি ফুল এইচডি ১৮ঃ৯ রেসিও আইপিএস ডিসপ্লে
  • ২.৫ ডি কার্ভড গ্লাস
  • ৮ মেগাপিক্সেল অটোফোকাস রিয়ার সনি ক্যামেরা সাথে এলিডি ফ্ল্যাশ
  • ৮ মেগাপিক্সেল অমনিভিশন সেলফি ক্যামেরা
  • ফেস আলনক
  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর
  • ৩২০০ এমএএইচ ক্ষমতাসম্পন্ন লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি
  • ডুয়েল ব্যান্ড ওয়াইফাই, নোটিফিকেশন লাইট, ওটিজি, ওটিয়ে আপডেট সহ আর অনেক…।

আপনি স্মার্টফোন গুলো দেখতে চলে যেতে পারেন, আপনার পাশের যেকোনো ওয়ালটন প্লাজায়।  তাছাড়াও আপনার পাশের ওয়াল্টন প্লাজায় স্মার্টফোনটির স্টক আছে কিনা, তা জেনে নিতে পারেন ওয়ালটন ই-প্লাজায় স্মার্টফোনটি চেকআউট করার মাধ্যমে।  যদি আপনার নিকটস্থ ওয়ালটন প্লাজায় স্মার্টফোন দুটির যেকোনো একটি এভেইলেবল থাকে, তবে সেখানেই অর্ডার বুক করতে পারেন।  আর প্লাজায় ষ্টক না থাকলে চলে যান আপনার এলাকার যেকোনো রিটেইল মোবাইল শপে।  আশা করি এই আর্টিকেলটি আপনার কাজে দিবে।  পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

কোন মন্তব্য নেই :

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন