নতুন প্রিমো এন৪ স্মার্টফোনঃ ৪ জিবি র‍্যাম, ৬৪ জিবি রম, বিগ ডিসপ্লে, ট্রিপল ক্যামেরা সেটাপ

  কোন মন্তব্য নেই
প্রায় মাস খানেক আগে ওয়ালটন বাজারে লঞ্চ করেছে তাদের বাজেট স্মার্টফোন প্রিমো এন৪। প্রিমো এন৪ এর ৩ জিবি র‍্যাম এবং ৩২ জিবি রম এরপর, এবার বাজারে এসেছে তাদের ৪ জিবি র‍্যাম এবং ৬৪ জিবি রম ভার্সন। স্মার্টফোনটির বক্সে স্বয়ং প্রিমো এন৪ স্মার্টফোনটি সহ সুরক্ষা সামগ্রী হিসেবে পাবেন একটি ট্রান্সপারেন্ট সিলিকন কেস এবং একটি স্ক্রিন প্রোটেক্টর গ্লাস।

একনজরে Primo N4 স্মার্টফোন

  • ১৯ঃ৯ রেসিও সমৃদ্ধ ৬.৫ ইঞ্চি আইপিএস ডিসপ্লে
  • ১৬+৮+২ মেগাপক্সেল রিয়ার ক্যামেরা সেটাপ
  • ৪ জিবি র‍্যাম, ৬৪ জিবি রম
  • ১৩ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা
  • ২টি সিম+ ১টি এসডি কার্ড ট্রে (3in1)
  • ডুয়াল সিম ৪জি
  • ৪০০০ এমএএইচ লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি

ডিজাইন

স্মার্টফোনটির ডিজাইন কিছুটা প্রিমো এস৪ স্মার্টফোনের মতই। স্মার্টফোনটির রিয়ার প্যানেল তথা ব্যাক প্যানেলে ব্যবহার করা হয়েছে পলিমার মডিফাইড মাষ্টার সিল্ড, যার বিশেষত্ব হল আলো পড়লে এটি দারুন ভাবে ভিন্ন আলোর প্রতিফলন ছড়ায়। রেইনবো ব্ল্যাক কালার ভেরিয়েন্টের ডিভাইসে জা বেশি লক্ষণীয়। বস্তুত প্রিমো এন৪ স্মার্টফোনটি বাজারে পাবেন ২টি কালারে, এগুলো হলঃ সি গ্রিন এবং রেইনবো ব্ল্যাক।  

বডি

স্মার্টফোনটির রিয়ার প্যানেলে নিচের দিকে একপাশে পাবেন ওয়ালটন ব্র্যান্ডিং এবং উপরে পাবেন একটি তুলনামূলক ফাস্ট ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। ফ্রন্ট প্যানেলে পাচ্ছেন স্মার্টফোনটির ডিসপ্লে, ভি- নচ এবং এর ইয়ারপিছ। ফোনটির উপরের দিকে পাবেন ৩.৫ এমএম হেডফোন জ্যাক, ডান পাশে ভলিউম রকার এবং পাওয়ার বাটন, বামে সিমকার্ড ট্রে (২টি সিম + একটি এসডি কার্ড) এবং নিচে পাবেন ইউএসবি ২.০ পোর্ট , স্পিকার এবং একটি মাইক্রোফোন গ্রিল। ডিভাইসটি হাতে নিলে তুলনামূলকভাবে ভালই প্রিমিয়াম ফিল পাবেন, আর ডিভাইসটির ওজনও অনেক কম মাত্র ১৮৪ গ্রাম এর মত । মোট কথা ডিজাইন এর দিক দিয়ে স্মার্টফোনটি অসাধারণ।

ডিসপ্লে

প্রিমো এন৪ স্মার্টফোনটির ফ্রন্ট প্যানেলে পাবেন ৬.৫ ইঞ্চি ইনসেল আইপিএস ডিসপ্লে প্যানেল। আর এই ডিসপ্লেটির রেজুলেশন ৭২০ পিক্সেল। আইপিএস প্যানেল হওয়ার ফলে, বিভিন্ন এঙ্গেল থেকে দেখলেও স্মার্টফোনটিতে কোনরকম কালার শিফটিং লক্ষ্য করা যায়না। দাম হিসেবে ডিসপ্লেটি দারুন, আমাদের দেশের স্মার্টফোন ক্রেতাগন বাজেট এর ভেতর চান একটু বড়-সর ডিসপ্লে, তাদের জন্য এই স্মার্টফোনটি ঠিক আছে।  

ইউজার ইন্টারফেস

স্মার্টফোনটির ইউজার ইন্টারফেস এন্ড্রয়েড ৯ পাই এর স্টক ইন্টারফেস এর অপর হালকা কাস্টমাইজ করে বানানো। তবুও ব্যবহারকারিরা প্রায় স্টক এর স্বাদই পাবেন। এক্সট্রা ফিচার হিসেবে এই স্মার্টফোনে থ্রি ফিঙ্গার স্ক্রিনশট, পিক আপ-টু-রিসিভ কল, স্মার্ট কন্ট্রোল ইত্যাদি সুবিধা পাবেন।

হার্ডওয়্যার

স্মার্টফোনটিতে পাচ্ছেন মিডিয়াটেক এর ৬৭৬৩ (অক্টাকোর) প্রসেসর। যাতে থাকছে ২.০ গিগাহার্জ ক্ষমতাসম্পন্ন ৮টি করটেক্স এ-৫৫ কোর। আর গ্রাফিক্স প্রসেসিং ইউনিট হিসেবে এতে পাচ্ছেন মালি এমপি জি৭১ জিপিইউ। এতে পাবেন ৪ জিবি র‍্যাম এবং ৬৪ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ। স্মার্টফোনটিতে পাবজি এবং ফ্রি-ফায়ার এর মত গেমস গুলো খুব ভালোভাবেই খেলা যাচ্ছিল।

সিকিউরিটি

স্মার্টফোনটিতে প্রাইমারি সিকিউরিটি হিসেবে পাবেন ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। আর তুলনামূলক ফাস্ট ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরের পরে, সেকেন্ডারি সিকিউরিটি ফিচার হিসেবে এতে পাবেন ফেস আনলক। মোটামটি স্বাভাবিক আলোতে এই ফেস আনলক ফিচার ভালোই কাজ করবে।

ব্যাটারি

স্মার্টফোনটিতে পাবেন ৪০০০ এমএএইচ ব্যাটারি, স্বাভাবিক ব্যবহারে সারাদিনের মত ব্যাটারি ব্যাকআপ অনায়াসেই পাবেন। আর স্মার্টফোনটির চার্জিং টাইম প্রায় আড়াই ঘন্টার মত।

ক্যামেরা

স্মার্টফোনটির রিয়ার প্যানেলে পাবেন তিনটি ক্যামেরা সেন্সর নিয়ে একটি ট্রিপল ক্যামেরা মডিউল। যার ভেতর একটি ১৬ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর, ৮ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা ওয়াইড সেন্সর এবং একটি ২ মেগাপিক্সেল এর ডেপথ সেন্সর পাবেন। ভালো আলোতে স্মার্টফোনটি ব্যবহার করে বেশ দারুন দারুন ছবি তুলতে পারবেন। ন্যাচারাল কালার এবং ডাইনামিক রেঞ্জ এর দিক দিয়েই এই ট্রিপল ক্যামেরা মডিউল বেশ এগিয়ে। আর এর ওয়াইড এঙ্গেল ছবি ক্যাপচারের ব্যাপারটাও দারুন পাবেন। স্মার্টফোনটির ফ্রন্ট প্যানেলে পাবেন একটি ১৩ মেগাপিক্সেলের সেলফি শুটার। ক্যামেরাটিতে দিয়ে তুলনামূলক বেশ ভালোমানের সেলফি তুলতে পারবেন আশা রাখি। তবে ব্যাক কামেরার চাইতে ফ্রন্ট ক্যামেরা আমার কাছে বেশি পছন্দ হয়েছে। দাম অনুযায়ী এই স্মার্টফোনটির ডিসপ্লে এবং ডিজাইন দুটিই খুবই অনবদ্য। আর ৩/৩২ ভার্সনের চাইতে এই ৪/৬৪ জিবি ভার্সন অনেকবেশি স্টেবল। স্মার্টফোনটির এক্সপেরিয়েন্স নিতে এখনি আপনার পাশের ওয়ালটন প্লাজায় চলে যেতে পারেন।

কোন মন্তব্য নেই :

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন