প্রিমো এস৭ প্রো রিভিউঃ ওয়্যারলেস চার্জিং, ৬ জিবি র‍্যাম, ১২৮ জিবি স্টোরেজ, হেলিও পি৭০, ১০৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা

  কোন মন্তব্য নেই

 প্রায় ৩-৪ মাস ধরে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়ার পর অবশেষে ওয়ালটন কুরবানি ঈদের আগে তাদের ব্যাপক হাইপ তোলা প্রিমো এস৭ প্রো স্মার্টফোনটি লঞ্চ করে। আর তারা তাদের সর্বশেষ এই হাইএন্ড স্মার্টফোনটি লঞ্চ করে দেশীয় ই-কমার্স প্লাটফর্ম ইভ্যালির মাধ্যমে। ওয়ারলেস চার্জিং, ৪৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা, ৬ জিবি র‍্যাম, ১২৮ জিবি স্টোরেজ, হেলিও পি৭০ ইত্যাদি দারুন সব ফিচারস সমৃদ্ধ অনবদ্য এই স্মার্টফোন প্রিমো এস৭ প্রো নিয়ে আজকের আর্টিকেলে জানার চেষ্টা করব পুরোটা বিস্তারিত।

একনজরে প্রিমো এস৭ প্রো

  • ৬.৩ ইঞ্চি এফএইচডি প্লাস আইপিএস ডিসপ্লে প্যানেল
  • হেলিও পি৭০ চিপসেট
  • এনার্জি এফিসিয়েন্ট ৬ জিবি ডিডিআর৪এক্স র‍্যাম
  • ১২৮ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ
  • ২৫৬ জিবি পর্যন্ত মাইক্রো এসডি কার্ড সাপোর্ট
  • ৪৮+৮+২ মেগাপিক্সেল ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ
  • ১০৮ আল্ট্রাপিক্সেল মোড
  • ১৬ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা
  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর এবং ফেস আনলক
  • ৩৯৫০ এমএএইচ ব্যাটারি
  • দামঃ ২০৫০০ টাকা

স্মার্টফোনটি আনবক্স করলে ভেতরে যা যা পাবেনঃ

ডিজাইন এবং ডিসপ্লে

স্মার্টফোনটির অন্যতম আকর্ষণীয় ব্যাপার হচ্ছে এর ডিজাইন এবং বিল্ট ম্যাটেরিয়াল। স্মার্টফোনটি তৈরি করা হয়েছেউন্নত মানের পিপিএমএ ম্যাটেরিয়াল দিয়ে, যার উদাহরন এর রিয়ার প্যানেলের দিকে তাকালেই বোঝা যায়, কেননা স্মার্টফোনটিতে হালকা আলো পরলেই এর ব্যাক প্যানেল যে সুন্দর রেইনবো ইফেক্ট দেয়, তা এই বাজেটের স্মার্টফোন হিসেবে যথেষ্ট প্রিমিয়াম, তা আর বলতে বাকি থাকে না।

স্মার্টফোনটির দুটি কালার ভেরিয়েন্ট ব্ল্যাক এবং ব্লু; দুটি ভেরিয়েন্টই একটি অন্যটির তুলনায় অনবদ্য। আর রিয়ার প্যানেলের কার্ভড ব্যাক স্মার্টফোনটি গ্রিপ করতে যেমন সুবিধা দেয়, তেমনিভাবে এটি ডিজাইনকেও আর বর্ধন করে।

ডিসপ্লে লাভারদের জন্য প্রিমো এস ৭ প্রো এগিয়ে থাকবে। স্মার্টফোনটিতে আপনি পাচ্ছেন ১৬সেন্টিমিটার তথা ৬.৩ ইঞ্চি ডিসপ্লে মডিউল। এটি ১৯.৫ঃ৯ রেশিও ফুলভিউ ডিসপ্লে। আর এটি একটি এফএইচডি+ আইপিএস ডিসপ্লে প্যানেল, আর যার ব্রাইটনেস লেভেল ৪২০ নিটস।

ডিসপ্লে এক্সপেরিয়েন্স এর দিক দিয়ে স্মার্টফোনটি যে কতোটা প্রিমিয়াম তা বোঝাই যাচ্ছে। আর ইনসেল আইপিএস ডিসপ্লে প্রজুক্তি বলে এটি সঠিক কালার প্রদর্শনের দিক দিয়েও এগিয়ে! সুতরাং গেমিং এবং কনটেন্ট ওয়াচিং এর দিক দিয়ে স্মার্টফোনটি আপনার কাছে কোন অভিযোগ রাখবে না, নিঃসন্দেহে।

 

হার্ডওয়্যার ও মেমোরি

স্মার্টফোনটির মেইন হার্ডওয়্যার ইউনিটকে পাওয়ার দিচ্ছে একটি ফ্লাগশিপ গ্রেড প্রসেসর। আর এটি হচ্ছে মিডিয়াটেক পি৭০ । মিডিয়াটেক পি৭০, ১২ ন্যানোমিটার ফিনটেক প্রযুক্তিতে তৈরি ২.১ গিগাহার্জ বাজস্পিড সম্বলিত করটেক্স এ৭৩/ এ৫৩ ভিত্তিক অক্টাকোর প্রসেসর। আর এই সিপিইউ ইউনিট এর সাথে আপনি জিপিউ তথা গ্রাফিক্স প্রসেসিং ইউনিট হিসেবে পাবেন মালি জি-৭২ এমপি৩ জিপিইউ। আর এই চিপসেটে ট্রিপল কোর আইএসপি এবং ডুয়াল কোর এপিইউ থাকার ফলে একদম Raw এইচ-ডি-আর ছবিগুলো এই ক্যামেরার মাধ্যমে তুলতে পারবেন কোনরকম কোয়ালিটির লস ছাড়াই। আর এটি ১২ ন্যানোমিটার প্রযুক্তিতে তৈরি বলে, এটি ১৪ ন্যানোমিটার প্রযুক্তিতে তৈরি প্রসেসর এর চাইতে ১৫ শতাংশ বেশি পাওয়ার এফিসিয়েন্ট।

এখন আসি স্মার্টফোনটির মেমোরি ইউনিটে। স্মার্টফোনটির সিস্টেম ব্যকআপ দেবার জন্য এতে থাকছে ৬ জিবি ডিডিআর৪এক্স র‍্যাম। র‍্যাম এর পরে, ইন্টারনাল স্টোরেজ পাবেন ১২৮ জিবি! এমনকি আপনি এতে ২৫৬ জিবি পর্যন্ত এক্সট্রা মাইক্রো এসডি কার্ডও লাগাতে পারবেন। সুতরাং সিস্টেম মেমরি শেষ হয়ে যাওয়া, অনেকগুলো অ্যাপ, গেমস একসাথে ইন্সটল করা এমনকি চালানো নিয়েও আপনার কোন সমস্যাই নেই।

প্রিমো এস৭ প্রোতে আপনি ফোর্টনাইট এর মত গেমসও খেলতে পারবেন অনায়াসেই। তাই যারা গেমিং লাভার তাদের জন্য প্রিমো এস৭ প্রো নিঃসন্দেহে দারুন একটি পছন্দ হতে পারে। এর এনটুটু বেঞ্চমার্ক স্কোর এসেছে ১৭৯৫০৬। আর গিকবেঞ্চে সিঙ্গেল কোরে ২৯২ এবং মাল্টি কোরে ১২৯৭।

 

ক্যামেরা

স্মার্টফোনটির আরেকটি দারুন আকর্ষণ এর ক্যামেরা সেকশন। অবশ্যই প্রিমো এস৭ প্রো তে পাবেন একটি ট্রিপল ক্যামেরা সেটাপ, যার মধ্যে একটি মেইন সেন্সর ৪৮ মেগাপিক্সেল । বাকি দুটি একটি ৮ মেগাপিক্সেল অয়াইড এঙ্গেল সেন্সর এবং একটি ২ মেগাপিক্সেল ডেপথ সেন্সর। আর স্মার্টফোনটির সিস্টেম দারুনভাবে এর ক্যামেরার জন্য অপটিমাইজড বলে আপনি এতে দারুন দারুন আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স সুবিধা প্রয়োগ করে অনবদ্য সব ছবি তুলতে পারবেন।

স্মার্টফোনটির বিশাল 1/2.25 সাইজের মেইন ৪৮ মেগাপিক্সেল সেন্সরের কারনে আপনার ছবির কোন ডিটেইলসই মিস হবেনা। আর ছবির ব্রাইটনেস এবং দারুন ফোকাল ডিসটেন্সএর জন্য আপনাকে সুবিধা দিবে এর দারুন F/1.79 এপারচার। আর মেইন সেন্সরটির 0.8µm পিক্সেল সাইজের কারনে আপনি এই ক্যামেরা দিয়ে 4000x3000 পিক্সেলে দারুন দারুন সব মোমেন্ট ক্যাপচার করতে পারবেন।

অনেকের কাছে প্রিমো এস৭ প্রো ১০৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরার ব্যাপারটা প্রশ্নবিদ্ধ, সবাই বলে এটা কিভাবে সম্ভব! মূলত এখানে হার্ডওয়্যার ৪৮ মেগাপিক্সেল ছবিই তুলবে তবে ফোনটির সফটওয়্যার সেকশনে থাকা এডভান্স ক্যামেরা অল্গরিদম এই 4000x3000 পিক্সেল রেজুলেশনকে বাড়িয়ে নিয়ে 12000*9024 পিক্সেলে রূপান্তর করে। যার ফলে ছবি ৩০ বারের মত জুম করলেও কোন ফাটা চোখে পরেনা, সবকিছু স্পষ্টই থাকে।

স্মার্টফোনটির ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপের সেকেন্ডারি ক্যামেরা সেন্সর হচ্ছে ৮ মেগাপিক্সেল ওয়াইড এঙ্গেল সেন্সর। যে সেন্সরের সাথে একটি ৫পি লেন্স থাকার ফলে এটি দারুনভাবে ১২০ডিগ্রি পর্যন্ত এঙ্গেলে দারুন সব অয়াইড এঙ্গেল ফুটেজ ক্যাপচার করতে সক্ষম হয়।

আর নানারকম মুহূর্ত খুবি দ্রুত ক্যাপচার করার জন্য এই স্মার্টফোনে থাকছে ১০ টার মত এআই scene মোড। যেমন খাবারের ছবি তুললে এর এআই মোড খাবারের কালার কারেকশন করে সেই সেই ছবিকে অনেকটা বেশি এনহান্স করে দিবে কোয়ালিটির দিক দিয়ে।

অল্প আলোতেও খুব দারুন সেলফি তোলার জন্য প্রিমো এস৭ প্রোতে থাকছে F/2.0 এপারচার সমৃদ্ধ ফ্রন্ট ১৬ মেগাপিক্সেল সিঙ্গেল ক্যামেরা সেন্সর। ৫ পি লেন্স সমৃদ্ধ দারুন এই ফ্রন্ট ক্যামেরা সেটাপ উন্নত কোয়ালিটির সাথে আপনার ফ্রন্ট ক্যামেরার সকল চাহিদা খুব ভালোভাবে মিটিয়ে দিবে।

 

সিকিউরিটি

স্মার্টফোনটির প্রাইমারি সিকিউরিটি ফিচার হিসেবে থাকবে ফিঙ্গারপ্রিন্ট আনলক। আর এর রেপন্স টাইম ১ সেকেন্ডের অর্ধেকেরও কম! আর সেকেন্ডারি সিকিউরিটি অপশন এর দারুন ১৬ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা নির্ভর ফেস আনলক । F/2.0 এপারচার সমৃদ্ধ ফ্রন্ট ক্যামেরা মডিউল হওয়ার ফলে কম আলোতেও এটি দারুন কাজ করবে।

 

ব্যাটারি

সম্পূর্ণ ডিভাইসটিকে ব্যাকাপ দিবে একটি ৩৯৫০ এমএএইচ ক্ষমতা সম্পন্ন লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি, আর ডিভাইসটির চিপসেট যথেষ্ট পাওয়ার এফিসিয়েন্ট হওয়ার ফলে এই ব্যাটারি দিয়েও আপনি সারাদিনের মত ব্যাকাপ পাবেন। ফুল চার্জে আপনি এটি দিয়ে টানা ৫ ঘন্টা ভিডিও রেকর্ডিং করতে পারবেন। টানা ৭ ঘন্টা ভিডিও ওয়েব ব্রাউজিং, ৬৯ ঘন্টা গান শুনতে পারবেন, ৩০ ঘণ্টা ভিডিও কলিং এবং টানা ৭ ঘন্টার ভিডিও কলিং ব্যাকআপ পাবেন। আর চার্জিং এর জন্য এতে পাচ্ছেন ১৮ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সুবিধা। আর অন্যতম ফিচার এতে ১অ ওয়াট ওয়ারলেস চার্জিং সুবিধাও পাওয়া যাবে। আপনি ওয়ারলেস ডক চার্জার এর মাধ্যমে অনায়াসে একে তারবিহীন চার্জ করতে পারবেন।

 

পরিশেষে

২০ হাজার টাকার বাজেট রেঞ্জে যদি কেনার জন্য প্রিমো এস৭ প্রো এর কথা বলা হয়, তবে ফিচারস এক দিক দিয়ে অনবদ্য এই স্মার্টফোনকে কোনভাবেই হেলা করা যাবে না। স্মার্টফোনটির বাহ্যিক ও অভ্যন্তরীণ সকল ফিচার এর দামের যথেষ্ট মূল্য রাখে। তবুও আপনি যদি প্রিমো এস৭ প্রো এর কথা ভেবে থাকেন তবে অবশ্যই আপনার পরবর্তী স্মার্টফোন হিসেবে একে এক্সপেরিয়েন্স করতে পারেন।

ওয়ালটনের অন্যসকল স্মার্টফোনের মতই এই প্রিমো এস৭ প্রো তেও পাবেন ১ বছরের সার্ভিস ওয়ারেন্টি এবং ৩০ দিনের রিপ্লেস্মেন্ট গ্যারান্টি।

কোন মন্তব্য নেই :

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন