Walton Primo E12 Review : ৫২৯৯ টাকায় অনবদ্য স্মার্টফোন!


দেশের বাজারে বাজেট স্মার্টফোনের জন্য অন্যতম বিশ্বস্ত একটি নাম ওয়ালটন। মূলত দেশের বাজেট গ্রাহকদের কথা মাথায় রেখে ওয়ালটন বরাবরই ভালো এবং নিত্যনতুন মডেলের নানান স্মার্টফোন বাজারে নিয়ে আসছে। ওয়ালটনের ই সিরিজ শুরু থেকেই বাজেট এন্ট্রি লেভেল স্মার্টফোনের জন্য জনপ্রিয়। সেই ই সিরিজের অধীনে ওয়ালটন বাজারে লঞ্চ করল তাদের নতুন স্মার্টফোন ওয়ালটন প্রিমো ই১২।

এক নজরে প্রিমো ই১২ স্মার্টফোন:

  • ৪জি কানেক্টিভিটি
  • ৫ ইঞ্চি এফ-ডাব্লিউভিজিএ ডিসপ্লে
  • ১.৪ গিগাহার্জ কোয়াডকোর সিপিইউ
  • মালি টি-৮২০ জিপিইউ
  • ১ জিবি র্যাম, ৮ জিবি রম
  • ২০০০ এমএএইচ ব্যাটারি
  • ৫২৯৯ টাকা
প্লাস্টিক বডির দারুন এই ডিভাইসটি বাজারে পাওয়া যাবে তিনটি কালারে। এগুলো হচ্ছেঃ কালো, লাল এবং নীল। আপনার রুচিশীলতার সাথে যেই কালারটি যায়, সেই কালারটিই বাছাই করে নিতে পারেন। স্মার্টফোনটিতে দুইটি সিমই ৪জি স্ট্যান্ডবাসি হিসেবে কাজ করবে। দুইটি সিম স্লটের প্রথম সিমটি ন্যানো এবং দ্বিতীয়টি মাইক্রো হতে হবে। পাশাপাশি স্মার্টফোনটিতে ডেডিকেটেড এসডি কার্ড স্লট তো থাকছেই। স্মার্টফোনটিতে পাবেন ৫ ইঞ্চির  এফ-ডাব্লিউভিজিএ ডিসপ্লে প্যানেল। টুকটাক সকল কাজের জন্য এই ডিসপ্লেটি অনায়াসে আপনার দারুন কাজে আসবে। ছোট কমপ্যাক্ট ফোন হিসেবে এই ডিসপ্লেটি আপনার জন্য একদম পারফেক্ট। নেটওয়ার্কিং নিয়ে প্রিমো ই১২ ডিভাইসে ব্যবহারকারীর কোনো সমস্যা হবেনা। কেননা, এটি একটি ৪জি কানেক্টিভিটি সাপোর্টেড ডিভাইস। স্মার্টফোনটির দুটি সিমেই ব্যবহারকারী একইসাথে ৪জি কানেক্টিভিটি সুবিধা পাবেন। লো বাজেট স্মার্টফোন হিসেবে এই ফোনটির হার্ডওয়্যার স্পেসিফিকেশনও খুবই ডিসেন্ট। প্রিমো ই১২ ডিভাইসটিতে ব্যবহার করা হয়েছে ১.৪ গিগাহার্জ ক্লকস্পীডের কোয়াড কোর প্রোসেসর। আর স্মার্টফোনটির সিস্টেমকে ব্যাকআপ দিবে ১ জিবি র্যাম। প্রিমো ই১২ ডিভাইসটিতে পাওয়া যাবে ৮ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ। যার মধ্যে ব্যবহারকারীরা ৪ জিবির মতন জায়গা ফাকা পাবেন। এন্ট্রি লেভেলের হার্ডওয়্যার থাকার কারনে প্রিমো ই১২ ডিভাইসটিতে পাবেন এন্ড্রয়েড ১০ এর লাইট তথা গো সংস্করণ। এন্ড্রয়েড এর গো সংস্করণ হবার ফলে, স্মার্টফোনটিতে গুগলের সকল অ্যাপের লাইট ভার্সন ব্যবহার করতে পারবেন স্মুথলি। পাশাপাশি টুকটাক দরকারি অ্যাপস গুলোর লাইট ভার্সন ব্যবহার করলে এই স্মার্টফোনটি দিয়ে ভালো ইউজার এক্সপেরিয়েন্স লাভ করা যাবে। প্রিমো ই১২ স্মার্টফোনটির ফ্রন্টে পেয়ে যাবেন ২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। এই ক্যামেরাটি দিয়ে টুকটাক সেলফি থেকে শুরু করে অনলাইন ক্লাস বা ভিডিও কলিং এর কাজও খুব অনায়াসে সেরে নিতে পারবেন। অবশ্যই এই লো-বাজেটে একদম একুরেট ক্যামেরা কোয়ালিটি নিয়ে কথা বলার দরকার নেই। ফ্রন্টের সেলফি ক্যামেরাটি ৭২০পিক্সেল রেজুলেশনে ভিডিও রেকর্ড করতে সক্ষম। স্মার্টফোনটির রিয়ারে পেয়ে যাবেন ৫ মেগাপিক্সেলের সিঙ্গেল প্রাইমারি ক্যামেরা সেন্সর। বিএসআই সেন্সর হবার ফলে, লো-লাইটে ভালো ফিডব্যাক পাওয়া যাবে। রিয়ারের প্রাইমারি সেন্সরটি ১০৮০পিক্সেল রেজুলেশনে ভিডিও রেকর্ড করতে সক্ষম। প্রিমো ই১২ সম্পূর্ণ ডিভাইসকে ব্যকআপ দিবে ২০০০ এমএএইচ ক্ষমতা সম্পন্ন লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি। অপটিমাইজড সিস্টেম বলে ডিভাইসটির ব্যাটারি কনজাম্পশনও অনেক সাশ্রয়ী। সাধারন ব্যবহারে অনায়াসে সারাদিন ব্যাকআপ পাওয়া যাবে এই ডিভাইসটি থেকে। এন্ট্রি লেভেল স্মার্টফোন বলে অবশ্যই এই স্মার্টফোনটি দিয়ে গেমিং বা মাল্টিটাস্কিং এর ক্ষেত্রে সেরকম এক্সপেরিয়েন্স নাও পেতে পারেন। তবে আপনার বাসার জন্য, বাসায় বয়স্ক মানুষের জন্য কিংবা শিক্ষার্থীদের অনলাইন ক্লাসের জন্য এই স্মার্টফোনটি পারফেক্ট! ওয়ালটনের অন্যসব স্মার্টফোনের মতই প্রিমো ই১৩ তেও পাবেন ১০১ দিনের প্রায়োরিটি সার্ভিস এবং ১ বছরের রেগুলার ওয়ারেন্টি। সারাদেশে করোনাকালীন কারনে যেহেতু সকল রিটেইল শপ, ওয়ালটন প্লাজা ও স্মার্টজোন বন্ধ। আপনি ওয়ালটন এর নতুন এই প্রিমো ই১২ স্মার্টফোনটি অর্ডার করতে পারবেন ঘরে বসে, ওয়ালটন ই-প্লাজা থেকেই।